প্রতিদিন ৩০ জন পুরুষের সঙ্গে আমাকে থাকতে বাধ্য করা হয়

ভিন্ন খবর

১২ বছর বয়সী এক কিশোরী মানবপাচারের শিকার হওয়ার পরবর্তী চার বছরে ৪৩ হাজার ২০০ বার ধর্ষণের শিকার হয়েছেন! ১৬ বছর বয়সে তাকে উদ্ধার করে মেক্সিকান পুলিশ। কার্লা জাকিন্তো বর্তমানে একজন মানবাধিকারকর্মী হিসেবে কাজ করছেন। তার বয়স ২৪।

তিনি বর্তমানে মানবপাচারবিরোধী কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সারাবিশ্বে নিজের ৪ বছরের ভয়ংকর অভিজ্ঞতার কথা বর্ণনা করেন।

জাকিন্তো বলেন, আমার পরিবার বেশ দরিদ্র ছিল। তাদের অর্থ এবং ভালো ভালো উপহার প্রদানের মাধ্যমে আমাকে জয় করে নেয় পাচারকারীরা। আমার বয়স তখন মাত্র ১২ বছর।

এই ১২ বছর বয়স থেকে ১৬ বছর বয়স পর্যন্ত বিভীষিকাময় অধ্যায়ের বর্ণনা দিতে গিয়ে কার্লা জাকিন্তো বলেন, আমাকে একটি ‘যৌনপল্লী’তে নিয়ে রাখা হয় এবং প্রতিদিন কমপক্ষে ৩০ জন পুরুষের সঙ্গে আমাকে থাকতে বাধ্য করা হয়।

তিনি বলেন, আমি এ সময় চোখ খুলে তাকাতাম না। বেশ ভয়ও পেতাম। আমি চোখ বন্ধ করে থাকলে তাদের যা করার, তারা সেটা করে চলে যেত।

১৬ বছর বয়সে মেক্সিকান পুলিশ মেক্সিকো সিটিতে চালানো এক অভিযানে কার্লাকে উদ্ধার করে। এরপর থেকে একটি পুনর্বাসন কেন্দ্রে ছিলেন কার্লা জাকিন্তো।

পুনর্বাসন কেন্দ্রে কর্মকর্তারা জানান, মানসিকভাবে বেশ বিপর্যস্ত ছিল সে। কিন্তু ধীরে ধীরে প্রেরণা ফিরে পায় কার্লা। আর এখন সে মানবপাচারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছে।

কার্লা জাকিন্তো বলেন, আমি এই যুদ্ধ চালিয়ে যাব। শুধু মেক্সিকোতে নয়, সারাবিশ্বে মানবপাচারের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ চালিয়া যাব আমি। কোনো শিশুকে আমি এই ভয়ংকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে দিতে চাই না।