৬ উইকেটে রানের পাহাড় গড়ছে সাব্বিরদের রাজশাহী

খেলাধুলা

জাতীয় ক্রিকেট লীগের (এনসিএল) চলমান আসরে রাজশাহী ডিভিশনের হয়ে খেলতে নেমে দারুণ একটি সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন ২৭ বছর বয়সী ডানহাতি ব্যাটসম্যান মিজানুর রহমান। আর তাঁর ১০২ রানের ইনিংসটির সুবাদে খুলনা ডিভিশনের বিপক্ষে দিন শেষে ৬ উইকেটে ৪৪৬ রান (১১৯ ওভার) সংগ্রহ করেছে রাজশাহী।

মিজানুর ছাড়াও দারুণ ব্যাটিং করছেন জহুরুল ইসলাম। ৯১ রানে অপরাজিত থেকে আগামীকাল মাঠে নামবেন তিনি। তাঁর সঙ্গী হিসেবে থাকবেন ৪০ রান করা সানজামুল ইসলাম। ব্যাট হাতে রাজশাহীর পক্ষে রান পেয়েছেন ফরহাদ হোসেনও। ৮৩ রানের আরেকটি অনবদ্য ইনিংস এসেছে তাঁর ব্যাট থেকে। তবে এদিন ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাব্বির রহমান। মাত্র ৩৩ রান করে আল আমিন হোসেনের শিকার হতে হয়েছে তাঁকে।

এর আগের দিন রাজশাহীর শহীদ কামরুজ্জামান স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এনসিএলের টায়ার ১ এর এই ম্যাচটিতে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন খুলনার অধিনায়ক খান আব্দুর রাজ্জাক। এরপর ব্যাটিংয়ে নেমে তুষার ইমরান অনবদ্য একটি সেঞ্চুরি হাঁকালেও বেশি রান করতে পারেনি দলটি।

রাজশাহীর বোলারদের তোপে মাত্র ২১০ রানে অলআউট হয়ে গিয়েছিল সৌম্য, সোহানদের খুলনা। তুষার সর্বোচ্চ ১০৪ রান করলেও বাকি ব্যাটসম্যানদের কেউই সেভাবে ভাল করতে পারেননি। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৬ রান এসেছে আনামুল হক বিজয় এবং নাহিদুল ইসলামের ব্যাট থেকে।

খুলনাকে এত অল্প রানে গুঁটিয়ে দেয়ার পেছনে মূল ভূমিকা পালন করেছিলেন পেসার শফিউল ইসলাম। ১২ ওভারে মাত্র ৪৩ রান খরচায় ৫ উইকেট শিকার করেছিলেন তিনি। এছাড়াও ২টি করে উইকেট পেয়েছেন দেলোয়ার হোসেন এবং সানজামুল ইসলাম। রাজশাহীর ২১০ রানের জবাবে পরবর্তীতে ২ উইকেটে ১৭৩ রান নিয়ে প্রথমদিনের খেলা শেষ করে খুলনা।

খুলনা ডিভিশন একাদশ- কাজি নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), খান আব্দুর রাজ্জাক (অধিনায়ক), তুষার ইমরান, জিয়াউর রহমান, আনামুল হক বিজয়, সৌম্য সরকার, নাহিদুল ইসলাম, আফিফ হোসেন, আল-আমিন হোসেন, রবিউল ইসলাম রবি, মেহেদি হাসান।

রাজশাহী ডিভিশন একাদশ- জহুরুল ইসলাম (অধিনায়ক), ফরহাদ রেজা, ফরহাদ হোসেন, জুনায়েদ সিদ্দিকি, নাজমুল হোসেন শান্ত, মিজানুর রহমান, সানজামুল ইসলাম, তাইজুল ইসলাম, সাব্বির রহমান, দেলোয়ার হোসেন।