কর্মদক্ষতাকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে এলো নোট নাইন !

তথ্য ও প্রযুক্তি

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা এখন আর ভার্চুয়াল কোনো ধারণা নয়, বরং মানুষের দৈনন্দিন জীবনের বিভিন্ন ক্ষেত্রে আংশিক ব্যবহার্য প্রযুক্তি। স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট নাইনে ব্যবহার করা হয়েছে সেরকমই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসমৃদ্ধ বিভিন্ন ফিচার:

>নোট নাইনের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচার হচ্ছে এস পেন। আগের সংস্করণগুলো তুলনায় নোট নাইনের এস পেনটিতে যুক্ত করা হয়েছে ব্যবহার উপযোগী সব ফিচার। নোট নেওয়া থেকে শুরু করে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের স্লাইড পরিবর্তন করা, ছবি তোলা, ইউটিউবে ভিডিও প্লেবেক নিয়ন্ত্রণ করাসহ আরও অনেক কিছু.

>ডেক্স মোড হচ্ছে নোট নাইনের আরেকটি সিগনেচার ফিচার। টাইপ-সি ক্যাবল দিয়ে মনিটরের সঙ্গে যুক্ত করে অনায়াসে নোট নাইন ডিভাইসটি ডেস্কটপ হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। এ ক্ষেত্রে নোট নাইনের ডিসপ্লেটি মাউসের ট্র্যাকপ্যাড এমনকি টাইপ করার জন্য কীবোর্ড হিসেবে ব্যবহার করা যাবে।

>অক্টা-কোর এক্সিনস ৯৮১০ চিপসেট, যা বিশ্বের দ্রুততম প্রসেসরগুলোর মধ্যে একটি। ২.৭ গিগাহার্টজ কোয়াড এবং ১.৭ গিগাহার্টজের কোয়াড স্পিড নিশ্চিত করবে প্রিমিয়াম এ ডিভাইসটির দুর্দান্ত কর্মক্ষমতা।

>নোট নাইনে ব্যবহার করা হয়েছে ৬ জিবি র‌্যাম এবং ১২৮ জিবি রম। এ ছাড়া ৫১২ জিবি পর্যন্ত মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহারেরও স্লট রাখা হয়েছে এতে।

স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট নাইন ইতোমধ্যে বাংলাদেশসহ বিশ্ববাজারে চলে এসেছে। দেশের বাজারে প্রিমিয়াম এ ডিভাইসটির দাম মাত্র ৯৪ হাজার ৯০০ টাকা।