বিশ্বকাপে ভারতের সম্ভাব্য সেরা একাদশ

খেলাধুলা

শেষ হলো এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই। আপাতত সামনে ২০১৯ বিশ্বকাপ ছাড়া বড় কোনো আসর নেই। তাই ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ নিয়েই এখন যত কথা। সদ্য এশিয়া কাপ জিতল ভারত। টুর্নামেন্ট থেকে শিক্ষা নিয়ে দলে ঠিক কতটা পরিবর্তন আনা উচিত? দেখে নেওয়া যাক বিশ্বকাপে ভারতের সম্ভাব্য সেরা একাদশ।

রোহিত শর্মা: এই মুহূর্তে ভারতীয় দলের অন্যতম ভরসার নাম রোহিত শর্মা । অসাধারণ ফর্মে রয়েছেন। এশিয়া কাপে সামনে থেকে দল পরিচালনা করেছেন। ফর্মে থাকলে, নিজের দিনে যে কোনও দলের পক্ষেই আতঙ্কের নাম ‘হটম্যান’ ।

শিখর ধাওয়ান: টেস্টে গত ইংল্যান্ড সফরে তেমন কিছু করতে পারেননি। তবে এশিয়া কাপে নিজের নামের প্রতি সুনাম দেখিয়েছেন। বিশ্বকাপে রোহিতের সঙ্গে ওপেন করতে দেখা যাবে রোহিতকে, তা প্রায় নিশ্চিত।

বিরাট কোহালি: এশিয়া কাপে ভারতীয় অধিনায়ককে বিশ্রাম দেওয়া হয়েছিল। বিশ্বকাপে কোহালি দলের নেতৃত্বে থাকবেন সন্দেহ নেই। তিন নম্বর জায়গাটা বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেটার কোহালি ছাড়া আর কাউকে ভাবার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।

আম্বাতি রায়ডু: চার নম্বর জায়গাটা রায়ুডুর জন্যই নির্ধারিত। ধারাবাহিকতায় কিছুটা সমস্যা অবশ্য রয়েছে। কিন্তু, ব্যাটসম্যান রায়ডুর প্রতিভা নিয়ে কোনও প্রশ্নের অবকাশ নেই।

মহেন্দ্র সিং ধোনি: স্টাম্পের পিছনেই থাকবেন এই ক্ষিপ্রতর উইকেট কিপার ব্যাটসম্যান। তবে ব্যাটিং পজিশনে দলের প্রয়োজনে যে কোনো যায়গায় থাকতে পারেন।

হার্দিক পাণ্ডিয়া: এশিয়া কাপে চোট পেয়ে ছিটকে গিয়েছেন। তবে, বিশ্বকাপে দলে থাকা নিশ্চিত। ইংল্যান্ডের পরিবেশে হার্দিকের বোলিং খুবই কার্যকর হবে। ব্যাট হাতে দ্রুত রান তোলার ক্ষমতা রাখেন। বাড়তি পাওনা পাণ্ডিয়ার অনবদ্য ফিল্ডিং। তবে এশিয়া কাপে রবীন্দ্র জাডেজার ফর্ম নতুন করে ভাবতে বাধ্য করবে নির্বাচকদের।

কেদার যাদব: এশিয়া কাপ যেন নবজন্ম দিয়েছে বোলার কেদারের। ফিল্ডার এবং ব্যাটসম্যান হিসেবেও কেদার অববদ্য। ইংল্যান্ডের পরিবেশে কেদার বল-ব্যাটে সফল হবেন বলেই মনে করা হচ্ছে। এশিয়া কাপের ফাইনালে যন্ত্রণা নিয়ে যে ভাবে মাঠে নামলেন, তাতে দলে কেদারের গুরুত্ব বাড়বে, সন্দেহ নেই।

কুলদীপ যাদব: চ্যায়নাম্যান বোলারটি যেন প্রতি দিনই পরিণত হয়ে উঠছেন। ইংল্যান্ডের মতো স্যাঁতসেতে পরিবেশে কুলদীপকে সামলানো বিপক্ষের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে উঠবে।

যুজবেন্দ্র চাহাল: ভারতীয় বোলিং আক্রমণকে নতুন বৈচিত্র দিয়েছেন। গত ইংল্যান্ড সফরেও যতটুকু সুযোগ পেয়েছেন, কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছেন। একদিনের ক্রিকেটে ক্রমেই ভারতীয় দলের ভরসার ক্রিকেটার হয়ে উঠছেন।

ভুবনেশ্বর কুমার: গত ইংল্যান্ড সফরে চোটের কারণে দলে ছিলেন না। এশিয়া কাপে ফিরে এসেই দুর্দান্ত পারফর্ম দেখিয়েছেন। আসন্ন বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের পরিবেশে ভুবিকে সামলানো কঠিন হবে বিপক্ষ দলের ক্ষেত্রে।

জাসপ্রীত বুমরা: ভুবির মতোও চোটের জন্য গত ইংল্যান্ড সফরে তাকে পুরোটা পায়নি দল। বিশ্বকাপে বিশ্বের এক নম্বর একদিনের ম্যাচের বোলার বুমরাকে বাদ দেওয়ার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।